ভুল চিকিৎসা: করোনা থেকে মুক্তি পেতে গরম পানি, লেবুর রস, সরিষার ভাপ

একটি ভিডিওতে দাবি করা হয়েছে, ঘরোয়া পদ্ধতিতে করোনাভাইরাস এর "শতভাগ নিশ্চিত চিকিৎসা ফরমুলা" বের করেছেন এক বাংলাদেশি নাগরিক

সামাজিক মাধ্যমে একটি ভিডিও ভাইরাল হয়েছে যাতে দাবি করা হয়েছে, ঘরোয়া পদ্ধতিতে করোনাভাইরাস এর "শতভাগ নিশ্চিত চিকিৎসা ফরমুলা" বের করেছেন এক বাংলাদেশি নাগরিক।

ভাইরাল ভিডিওটি ফেসবুকে সবচেয়ে বেশি ভিউ হয়েছে "এমএস মিডিয়া" নামে একটি পেইজ থেকে। ২১ লাখের বেশি ভিউ হওয়া এই একই ভিডিও অন্যান্য কয়েকটি ফেসবুক পেইজেও কয়েক লক্ষবার ভিউ হয়েছে।

এমএস মিডিয়া (উপস্থাপক পেইজটিকে 'এসকে মিডিয়া' বলেছেন) এর ভিডিওতে "রিপন চৌধুরী" নামে এক ব্যক্তি নারায়ণগঞ্জের একজন বাসিন্দার 'উদ্ভাবিত' করোনাভাইরাস মোকাবেলার 'শতভাগ নিশ্চিত ফরমুলা' উপস্থাপন করতে গিয়ে বলেছেন, "খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি ভিডিও আমি আপনাদের সামনে উপস্থাপন করতে যাচ্ছি।"

তিনি আরও বলেছেন, "করোনা রোগের একশত পারসেন্ট নিশ্চিত একটি চিকিৎসার ফরমুলা আপনাদেরকে দেব। সেই ফরমুলাটি আমাদের বাংলাদেশেরই একজন নাগরিক, যিনি নারায়নগঞ্জের অধিবাসী,উনার পরিবারের সদস্য এই করোনা রোগে আক্রান্ত হবার পর সেই রোগ থেকে ঘরোয়া পদ্ধতিতে ঘরোয়া সরঞ্জামাদির সাহায্যে তিনি মুক্তি লাভ করেছেন।"

ফরমুলাটা কী?

এরপর রিপন চৌধুরী নারাণগঞ্জের বাসিন্দা হিসেবে দাবি করা 'ফরমুলা উদ্ভাবনকারী' ব্যক্তিটির ভিডিও উপস্থাপন করেন। তাতে ওই ব্যক্তি দাবি করেন--

দুইটা বড় লেবুর রস, আড়াই গ্লাস পানি, ১০টি লং, ১০টি এলাচি, ১০ পিস দারুচিনি, কুচিকুচি করে বড় রসুনের ৬টি কোয়া, আধা পোয়া আধা কুচি, এবং খাঁটি ২ চামচ সরিষার তেল মিশিয়ে হাড়িতে গরম করতে হবে। এরপর চুলায় পাতিল রেখে নিজের মাথায় ওড়না বা এই ধরনের কোনো কাপড় ঝুলিয়ে ১০ মিনিট সেই পাতিল থেকে গরম মিশ্রণের ভাপ নিতে হবে। এবং পরে সেই পুরো মিশ্রণটি খেয়ে ফেলতে হবে।

এভাবে প্রতি ঘণ্টায় একবার করে করতে হবে যতক্ষণ না করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

নারাণগঞ্জের ওই বাসিন্দা দাবি করেন, তার বোন এমন পদ্ধতিতে চিকিৎসা নিয়ে করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পেয়েছেন। তিনি বারবার 'আল্লাহর জাতের কসম' করে দাবি করেছেন এই ফরমুলা অনুসরণ করলে করোনভাইরাস আক্রান্ত রোগী শতভাগ নিশ্চিতভাবে সেরে উঠবেন। দেশের মানুষের 'স্বার্থে' তিনি তার ভিডিওটি শেয়ার করার জন্য বারবার অনুরোধও জানিয়েছেন।

ফ্যাক্ট চেক:

যেহেতু নভেল করোনাভাইরাস একটি নতুন ভাইরাস এবং এটি মোকাবেলায় কোনো ভ্যাকসিন বা পরীক্ষিত চিকিৎসা এখনও উদ্ভাবিত হয়নি, ফলে এই মহামারি শুরু হওয়ার পর থেকেই দেশে দেশে নানান ধরনের টোটকা চিকিৎসার কথা সামাজিক মাধ্যমে ব্যাপকভাবে ছড়িয়েছে। এরমধ্যে গরম পানি, লেবুর রসের সাথে অন্যান্য বিভিন্ন দ্রব্যাদি মিশিয়ে ভাপ নেয়ার বিষয়টি অত্যন্ত আলোচিত একটি বিষয়।

কিন্তু চিকিৎসা বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, গরম পানির সাথে কিছু মিশিয়ে ভাপ নেয়ার মাধ্যমে করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পাওয়ার কোনো বৈজ্ঞানিক প্রমাণ তাদের কাছে নেই।

গত ৩০ মার্চ বার্তা সংস্থা রয়টার্স একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে যার শিরোনাম, "False claim: Steam therapy kills coronavirus". অর্থাৎ, ভাপ থেরাপিতে করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পাওয়া যায় এমন দাবি ভুল"।

পানি, লেবুর রস, আদা, রসুন, তেল, চা গাছ, ইউকেলিপটাস ও নিমের পাতা ইত্যাদি বিভিন্ন জিনিস গরম করে ভাপ নিলে করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে-- এমন দাবি সম্বলিত কিছু ফেসবুক পোস্ট তুলে ধরা হয় রয়টার্সের প্রতিবেদনে।

একই প্রতিবেদনে যুক্তরাষ্ট্রের Centers for Disease Control and Prevention (CDC) এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার বরাতে জানানো হয়েছে, ভাইরাল রোগ নিয়ে কাজ করা বিশ্বের এই দুটি শীর্ষ প্রতিষ্ঠানের কেউই এমন কিছু কখনো বলেনি যে, গরম পানির সাথে যে কোনো কিছু মিশিয়ে সেটির ভাপ নিলে তাতে করোনাভাইরাস থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

CDC এর একজন প্রতিনিধি রয়টার্সকে বলে ভাপ নিলে করোনাভাইরাস সেরে যায় এমন কোনো বৈজ্ঞানিক গবেষণার কথা তাদের জানা নেই।

''ভাপ থিওরি''র যে কোনো উপকারিতা নেই তা তুলে ধরে এএফপি, বিবিসি সহ বিভিন্ন ফ্যাক্ট চেকিং প্রতিষ্ঠান প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে।

কোনো ধরনের গরম ভাপ কেন করোনাভাইরাসের ক্ষতি করতে পারে না সে বিষয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বলছে, যত গরম পানি দিয়ে গোসল করা হউক বা ভাপ নেয়া হোক না কেন- মানুষের শরীরে স্বাভাবিক তাপমাত্র ৩৬ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস থেকে ৩৭ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যেই থাকবে, এই তাপমাত্রায় করোনাভাইরাসের কোনো ক্ষতি হয়না।

উল্টো একাধিক বৈজ্ঞানিক গবেষণায় এ ধরনের ভাপ নেয়ার ক্ষেত্রে সতর্ক করে বলা হয়েছে, এতে অনেক সময় চামড়া পড়ে যাওয়ার শঙ্কা থাকে।

Updated On: 2020-04-17T19:14:55+05:30
Claim Review :  ঘরোয়া পদ্ধতিতে করোনাভাইরাস এর শতভাগ নিশ্চিত চিকিৎসা ফরমুলা বের করেছেন এক বাংলাদেশি নাগরিক
Claimed By :  Facebook posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story