লেবাননে কি বোমা বা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা হয়েছিলো?

লেবাননের বৈরুতে বিস্ফোরণের পিছনে বোমা কিংবা ক্ষেপণাস্ত্র হামলাকে কারণ হিসেবে কিছু পোর্টালে দায়ী করা হয়েছে।

"বিস্ফোরণ নয়, বোমা বা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছিল লেবাননের রাজধানী বৈরুতে" শিরোনামে একটি সংবাদ কিছু বাংলাদেশী অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত হয়েছে। দেখুন এখানেএখানে

যদিও সংবাদের ভেতরে বলা হয়েছে "লেবাননের ভয়াবহ বিস্ফোরণ নিছক কোন দুর্ঘটনা নয়, একটি পরিকল্পিত হামলা। বোম কিংবা ক্ষেপণাস্ত্র হামলার মাধ্যমে ওই ভয়াবহ বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছে। এমন আশঙ্কা দেশটির প্রেসিডেন্ট মিশেল আউনের।"
এখানে লক্ষ্যনীয় যে খবরের মধ্যে লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন 'আশঙ্কা' করেছেন এমন উল্লেখ থাকলেও সংবাদটির শিরোনামে কোনো প্রকার
উদ্ধৃতি
চিহ্ন বা অন্য কোন সূত্র উল্লেখ ছাড়াই এমন ভাবে প্রকাশ করা হয়েছে যাতে সাধারন পাঠকের মনে হতে পারে লেবাননের রাজধানী বৈরুতে মর্মান্তিক বিস্ফোরনের জন্য বোমা বা ক্ষেপনাস্ত্রই দায়ী।
সংবাদটি প্রকাশিত হবার পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ও বিভিন্ন নিউজ পোর্টালে তা ছড়ায়।

বাংলাদেশ প্রতিদিন "বিস্ফোরণের নেপথ্যে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা!" শিরোনামে একটি প্রকাশিত সংবাদে দাবী করে "লেবাননের বৈরুতে ভয়াবহ বিস্ফোরণের নেপথ্যে বাইরের কোনো দেশ থেকে বোমা বা ক্ষেপণাস্ত্র হামলার ঘটনা রয়েছে বলে মনে করছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন।"
ফ্যাক্ট চেক:
বুম বাংলাদেশের অনুসন্ধানে দেখা যায় যে, লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আউনের সংবাদ সম্মেলনের বক্তব্যের সূত্র ধরে লেবাননের রাজধানী বৈরুতের বিস্ফোরণের কারন হিসেবে মিসাইল কিংবা বোমা হামলার দাবী করা হয়েছে। প্রেসিডেন্ট মিশেল আউন তার সংবাদ সম্মেলনে বৈরুতে বিস্ফোরনের কারন হিসেবে নিশ্চিতভাবে মিসাইল বা বোমা হামলাকে দায়ী না করলেও কিছু সংবাদের শিরোনামে এরকম দাবীই করা হয়েছে। যেহেতু এখনো বিস্ফোরনের সঠিক কার জানা যায়নি তাই মিশেল আউন কার হিসেবে বৈদেশিক শক্তির ইন্ধন থাকতে পারে কিংবা অবহেলাজনিত কারনেও বিস্ফোর
ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা প্রকাশ করেন ।
সংবাদ মাধ্যম রয়টার্সের প্রকাশিত এক সংবাদে দেখা যায়, লেবাননের প্রেসিডেন্ট মিশেল আউনের গত শুক্রবারে এক সাংবাদিক সম্মেলনে বলেন "The cause has not been determined yet. There is a possibility of external interference through a rocket or bomb or other act," অর্থাৎ বিস্ফোরনের কারণ এখনো পরিষ্কার নয়। সেটা (বিস্ফোরন) হয়তো বৈদেশিক শক্তির মিসাইল বা বোমা হামলার কারণেও ঘটে থাকতে পারে।
এবিসি নিউজের এক প্রতিবেদনে দেখা যায় তিনি আরও বলেন "the investigation would also consider if the blast was due to negligence or an accident." অর্থাৎ বিস্ফোরনের পিছনে অবহেলা জনিত কার
বা দুর্ঘটনা কিনা সেটাও আমলে নিয়ে খতিয়ে দেখা হবে।"

অর্থাৎ, লেবানিজ প্রেসিডেন্টের যে বক্তব্যের সূত্র ধরে লেবাননের রাজধানী বৈরুতের বিস্ফোরণের কারণ হিসেবে মিসাইল কিংবা বোমা হামলাকে 'নিশ্চিত কারণ' হিসেবে উপস্থাপন করা হয়েছে খবরে, প্রকৃতপক্ষে সেই বক্তব্যে 'নিশ্চিত কোনো কারণ' এর কথা বলেননি প্রেসিডেন্ট। তিনি শুধু সম্ভাব্য কারণকে সামনে রেখে আগানোর কথা বলেছেন।

ফলে বাংলাদেশি পোর্টালগুলোর এমন শিরোনাম ভুল ও বিভ্রান্তিকর।প্রসঙ্গত, লেবাননে বিস্ফোরণের ঘটনার কিছু ভিডিও এডিট করে তাতে ক্ষেপণাস্ত্র আঘাত হানার দৃশ্য যুক্ত করা হয়েছে। এ সংক্রান্ত আমাদের প্রতিবেদন পড়ুন এখানে

Updated On: 2020-10-14T17:14:55+05:30
Claim Review :   বিস্ফোরণ নয়, বোমা বা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালানো হয়েছিল লেবাননের রাজধানী বৈরুতে
Claimed By :  Website, Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story