অসমর্থিত তথ্য দিয়ে মালয়েশিয়ার ছবিকে ইন্দোনেশিয়ার বলে প্রচার

মালয়েশিয়ার সেই কবরের ছবিতে দৃশ্যমান আলোর ঘটনাটিও প্রমানিত নয়।

ফেসবুকে একাধিক পোস্টে দাবি করা হচ্ছে, ইন্দোনেশিয়ায় এক হাফেজের কবরে আলো দেখা গেছে। দেখুন এমন কিছু পোস্ট এখানে এবং এখানে

গত ১২ ফেব্রুয়ারি 'আমাদের প্রিয় পটুয়াখালী জেলা' নামের একটি গ্রুপে একটি ছবি পোস্ট করা হয়। ছবিতে দেখা যায়, একজনের কবরে আলোসদৃশ কিছু দেখা যাচ্ছে। দাবি করা হচ্ছে, কবরটি ইন্দোনেশিয়ার একজন হাফেজের এবং তার কবরে নুরের আলো জ্বলছে। দেখুন পোস্টটির স্ক্রিনশট--

পোস্টটি দেখুন এখানে

ফ্যাক্টচেক:

বুম বাংলাদেশ যাচাই করে দেখেছে, কবরে আলো জ্বলার খবরটি বিভ্রান্তিকর। প্রথমত, পোস্টে দাবি করা হয়েছে, ঘটনাটি ইন্দোনেশিয়ার। কিন্তু রিভার্স সার্চিং টুল ব্যবহার করে মালয়েশিয়া ভিত্তিক bharian.com.my নামের একটি নিউজ পোর্টালে এ সংক্রান্ত একটি রিপোর্ট পাওয়া গেছে। সেখানে বলা হয়, ছবিটি মালয়েশিয়ার সেরেমবান শহরের একটি ঘটনার। দেখুন সেই প্রতিবেদনের স্ক্রিনশট--

প্রতিবেদনটি পড়ুন এই লিংকে

উক্ত প্রতিবেদনের মতে, মালয়েশিয়ার নেগেরি সেমবিলান প্রদেশের উলামা কাউন্সিলের প্রধান মোহাম্মদ খাইরি যাইনুদ্দিন ২০১৬ সালের ২০ ডিসেম্বর মারা যান। তার পরপরই মোহাম্মদ খাইরির কবরের একটি ছবি ব্যাপকভাবে হোয়াটস এপে ভাইরাল হয় যেখানে তার কবরে আলোর ঝলকানি দেখা যায়। দাবি করা হতে থাকে, এই আলো বিশেষ নুরের আলো। পরবর্তীতে মৃত খাইরি যাইনুদ্দিনের ভাই নাজরি যাইনুদ্দিন জানান, তারা তাদের ভাইকে কবরস্থ করার সময়ে এমন কোনো আলো দেখতে পাননি। তাছাড়া তিনি আরো জানান, ভাইরাল হওয়া ছবিটি ইতিমধ্যে তারা দেখলেও সেটিকে অস্বাভাবিক কিছু মনে করছেন না।

তবে পত্রিকাটি বলছে, কবরে দৃশ্যমান আলোটি ক্যামেরার লেন্সের কারনেও তৈরি হতে পারে। পরবর্তীতে সেই ছবিটি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে।

অর্থাৎ মালয়েশিয়ার একটি ঘটনার ছবিকে ইন্দোনেশিয়ার ছবি বলে দাবি করা বিভ্রান্তিকর। এছাড়া সেখানে কবরে আলো জ্বলার ঘটনাটিও প্রমাণিত নয়।

Claim Review :   ইন্দোনেশিয়া এক কোরআনের হাফেজ এর কবরে নুরের আলো জ্বলছে
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  Misleading
Show Full Article
Next Story