ভিডিওটি সিলেটের বন্যার নয়

বুম বাংলাদেশ দেখেছে, ভিডিওটি ২০২১ সালে ইন্দোনেশিয়ার লম্বক দ্বীপে ঘটা বন্যার সময় ধারণ করা।

সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকের একাধিক পেজ থেকে একটি ভিডিও শেয়ার করে দাবি করা হচ্ছে, সিলেট জেলার সাম্প্রতিক বন্যার পানির স্রোত বাড়ি ভাসিয়ে নিয়ে যাবার দৃশ্য এটি। এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে এবং এখানে

গত ২০ মে 'বাংলাদেশের লন্ডন সিলেট' নামের ফেসবুক পেজ থেকে ভিডিওটি পোস্ট করে লেখা হয়, "ও আরশের মালিক তুমি হেফাজত কর আমাদের, আমাদের সিলেট আজ ভালো নেই"। অর্থাৎ দাবি করা হচ্ছে ভিডিওটি সিলেটের। স্ক্রিনশট দেখুন--

পোস্টটি দেখুন এখানে

ফ্যাক্ট চেক:

বুম বাংলাদেশ যাচাই করে দেখেছে, ভিডিওটি সিলেটের চলমান বন্যার নয় বরং ২০২১ সালে ইন্দোনেশিয়ার লম্বক দ্বীপে ঘটা বন্যার সময় ধারন করা ফুটেজ এটি।

ভিডিওটি থেকে কী-ফ্রেম কেটে সার্চ করার পর, যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সংবাদমাধ্যম ইনসাইডার-এ ২০২১ সালের ৮ ডিসেম্বর "Watch as heavy rainfall in Indonesia washes away homes and floods streets" শিরোনামে ভিডিও প্রতিবেদনে মূল ভিডিওটি খুঁজে পাওয়া যায়। ওই প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, তৎকালে ইন্দোনেশিয়ার লম্বক দ্বীপে টানা বৃষ্টিতে বন্যা ও ভূমিধ্বসের সৃষ্টি হয়েছিল। স্ক্রিনশট দেখুন--

প্রতিবেদনটি দেখুন এখানে

একই বিবরণে ভিডিওটি যুক্ত করতে দেখা গেছে ২০২১ সালের ৬ ডিসেম্বর প্রকাশিত ইয়াহু নিউজের একটি প্রতিবেদনের সাথেও। প্রতিবেদনে লেখা হয়েছে, তৎকালে মুষলধারে বৃষ্টির কারণে সৃষ্ট আকস্মিক বন্যায় ইন্দোনেশিয়ার লম্বক দ্বীপে দুটি ঘর স্রোতে ভেসে যায়। ভিডিওটি সেই ঘটনায় ৬ ডিসেম্বর ধারণ হয়েছিল। স্ক্রিনশট দেখুন--

প্রতিবেদনটি দেখুন এখানে

একই বন্যার খবরের সাথে ভিডিওটি যুক্ত করতে দেখা গেছে ইন্দোনেশিয়ার স্থানীয় গণমাধ্যম কোমপাস-এর ইউটিউব চ্যানেলেও। দেখুন--

অর্থাৎ ভিডিওটি সিলেটের সাম্প্রতিক বন্যার নয় বরং ২০২১ সালে ইন্দোনেশিয়ায় লম্বক দ্বীপে বন্যার ঘটনার।

সুতরাং ইন্দোনেশিয়ার বন্যার পুরোনো ভিডিওকে সিলেটের সাম্প্রতিক বন্যার দাবি করা হচ্ছে সামাজিক মাধ্যমে, যা বিভ্রান্তিকর।

Claim :   আমাদের সিলেট আজ ভালো নেই
Claimed By :  বাংলাদেশের লন্ডন সিলেট
Fact Check :  Misleading
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.