না, এটা ইরাকে প্রতিনিয়ত বয়ে চলা বালির নদী নয়

২০১৫ সালে ইরাকে প্রচন্ড শিলাবৃষ্টির পর সংঘটিত আকস্মিক বন্যায় এই দৃশ্যের অবতারণা হয়।

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে 'ইরাকের এই সেই বালির নদী, পানি না বয়ে বালি বয়ে চলছে প্রতিনিয়ত সুবহানআল্লাহ' এই ক্যাপশন দিয়ে একটি ভিডিও ছড়ানো হচ্ছে যেখানে দেখা যাচ্ছে মরুভূমির মতো দেখতে একটি জায়গায় বালি সদৃশ কিছু নদীর পানির মতো বয়ে চলেছে। সেখানে আরব অঞ্চলের পোষাক পরিহিত এক ব্যক্তিকে তা হাতে নিতে দেখা যায়।

আর্কাইভ করা আছে এখানে

আরেকটি আর্কাইভকৃত পোস্ট দেখুন এখানে

ফ্যাক্ট চেক:
বুম বাংলাদেশ যাচাই করে দেখেছে যে বালির নদী বলে দাবি করা তথ্যটি পুরোপুরি সত্য নয়।
ভিডিওটিকে ইরাকের বালির নদীর বলে এর আগেও অন্যান্য দেশে দাবি করা হয়েছিল। এর প্রেক্ষিতে
ইন্ডিয়া টুডে
, জি নিউজহাফিংটন পোস্টের মতো সংস্থা তখন বিষয়টি ফ্যাক্ট চেক করে।
প্রকৃতপক্ষে ২০১৫ সালের গ্রীষ্মে ইরাকে আকস্মিক বৃষ্টির সাথে গলফ বলের সাইজের তীব্র শিলাবর্ষণ হওয়ায় তা পাহাড়ী ঢলের মতো করে পানির সাথে অপেক্ষাকৃত নিচু অঞ্চলের দিকে ধাবিত হতে থাকে। পানির সাথে বহমান এই শিল বা করকাকেই বালি বলে দাবি করা হচ্ছে।
মূলত যেখানে ভিডিওটি ধারণ করা হয়েছে সেখানে বৃষ্টির কোন চিহ্ন না থাকলেও উজানের দিকে টানা বৃষ্টিপাত হওয়ার ফলে সেই পানি নীচু অঞ্চলের দিকে প্রবাহিত হয় এবং সাথে আকাশ থেকে বর্ষিত বল সদৃশ শিলাও ভাসতে থাকে।
ডেইলী মিররের এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন দেখুন এখানে

সুতরাং এই দৃশ্যটি প্রতিনিয়ত বয়ে চলা কোন বালির নদীর নয়, বরং আবহাওয়াজনিত কারণে সংঘটিত আকস্মিক বন্যার একটি দৃশ্য।
Claim Review :   ইরাকের এই সেই বালির নদী পানি না বয়ে বালি বয়ে চলেছে প্রতিনিয়ত।
Claimed By :  Facebook posts
Fact Check :  Misleading
Show Full Article
Next Story