বরিশালে বিএনপি কর্মীদের পেটানোর দাবিতে প্রচারিত ভিডিওটি ভারতের

বুম বাংলাদেশ দেখেছে, ভিডিওটি ভারতের ছত্তিশগড় রাজ্যে একটি দোকানের সামনে দোকান মালিকের উপর দুর্বৃত্তদের হামলার ঘটনার।

সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকের একাধিক আইডি ও পেজ থেকে একটি ভিডিও শেয়ার করে বলা হচ্ছে, ভিডিওটি বরিশালে বিএনপি নেতাকর্মীদের পেটানোর এবং সেই সময়ে একজনের করা প্রতিবাদের। এরকম কয়েকটি পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে, এখানেএখানে

গত ৫ নভেম্বর 'রাকিব চৌধুরী পিয়াস' নামে একটি আইডি থেকে ৭৭ জনকে ট্যাগ করে একটি ভিডিও পোস্ট করে লেখা হয়, "মাটিতে পানি পড়লে হয় কাদা আর রক্ত পড়লে হয় স্বাধীনতা 🔥 🔥প্রতিকূল পরিস্থিতিতেই বীরের জন্ম🔥 বরিশালে বিএনপির তিন জন কর্মীকে প্রথমে পিটাতে আসে, পরে নিজেই প্রতিবাদ শুরু করে এভাবে এগিয়ে যেতে হবে, ভয় কে জয় করতে হবে!! ক্ষমতা থাকলে সব হয় না, হতাশ না হয়ে মনের ইচ্ছাশক্তি আর মনে সাহস কাজে লাগান, সফলতা একদিন আপনিও পাবেন ইনশাআল্লাহ।" ফেসবুক পোস্টটি দেখুন---


ফ্যাক্ট চেক:

বুম বাংলাদেশ যাচাই করে দেখেছে, পোস্টে ভিডিওটির বর্ণনায় করা দাবিটি সঠিক নয়। ভিডিওটির ঘটনাস্থল বাংলাদেশের বরিশালে নয় বরং ভারতের ছত্তিশগড় রাজ্যের বিলাসপুর নামক স্থান।

ভিডিওটি থেকে কি-ফ্রেম কেটে নিয়ে সার্চ করে ভারতের অনলাইন পোর্টাল 'jantaserishta.com'-এ গত ২০ অক্টোবর "ढाबा संचालक की बेरहमी से पिटाई, लाठी-डंडे लेकर पहुंचे थे बदमाश" ( স্বয়ংক্রিয় ইংরেজি অনুবাদ-Dhaba operator beaten brutally, crooks arrived with sticks) শিরোনামে একটি প্রতিবেদন খুঁজে পাওয়া যায়। ওই প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, ছত্তিশগড় রাজ্যের বিলাসপুর নামক স্থানে একজন ধাবা বা ছোট খাবারের দোকানের মালিক ও তার ছেলেকে পিটিয়েছে দুর্বৃত্তরা। স্ক্রিনশট দেখুন--

প্রতিবেদনটি দেখুন এখানে

আলোচ্য ফেসবুক ভিডিওটি ও উপরের প্রতিবেদনটি একই ঘটনার। ফেসবুক ভিডিওটি থেকে নেয়া একটি ফ্রেম ও উপরের প্রতিবেদনের সাথে যুক্ত ছবিটির পাশাপাশি তুলনা দেখুন--

প্রতিবেদনের সাথে যুক্ত ছবিটি (বামে) এবং আলোচ্য ভিডিওটি থেকে নেয়া ফেম (ডানে)

আরো সার্চ করে naidunia.com নামে আরেকটি ওয়েবসাইটেও একই ঘটনার প্রেক্ষিতে সংবাদ খুঁজে পাওয়া যায়। অর্থাৎ ঘটনাটি বাংলাদেশের বরিশালের নয় বরং ভারতের ছত্তিশগড় রাজ্যের।

সুতরাং ভারতের ছত্তিশগড় রাজ্যের বিলাসপুর নামক স্থানে একজন দোকান মালিক ও তার ছেলেকে পেটানোর ঘটনার ভিডিওকে বাংলাদেশের বরিশালে বিএনপি নেতাকর্মীদের পেটানোর ঘটনা বলে প্রচার করা হচ্ছে, যা বিভ্রান্তিকর।

Updated On: 2022-11-16T19:58:57+05:30
Claim :   বরিশালে বিএনপির তিন জন কর্মীকে প্রথমে পিটাতে আসে, পরে নিজেই প্রতিবাদ শুরু করে।
Claimed By :  Facebook post
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.