ইরাকে বিকল বিমানকে বিস্ফোরক দিয়ে টুকরো করার ছবিকে আফগানিস্তানের বলে দাবি

বুম বাংলাদেশ দেখেছে, ২০০৮ সালে ইরাকে একটি বিকল বিমানকে বহন করার সুবিধার্থে বিস্ফোরক দিয়ে ছোট টুকরো করা হয়।

সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে একটি ছবি দিয়ে দাবি করা হচ্ছে, আফগানিস্তানের ফারাহ সীমান্তে একটি মার্কিন সামরিক বিমান বিধ্বস্ত হয়। দেখুন এমন কিছু পোস্ট এখানে এবং এখানে

গত ২৯ আগস্ট 'newslives24.com' নামের একটি ফেসবুক পেজ থেকে একটি ছবি পোস্ট করে বলা হয়, কাবুল বিমানবন্দর থেকে কাতার যাওয়ার পথে মার্কিন সামরিক বিমান C130 আফগানিস্তানের ফারাহ প্রদেশে বিধ্বস্ত হয়। এতে বহু মানুষ হতাহত হয়েছে বলেও দাবি করা হয়। দেখুন সেই পোস্টের স্ক্রিনশট--


পোস্টের সাথে যুক্ত ছবিটি আলাদাভাবে দেখুন--


ফ্যাক্ট চেক:

বুম বাংলাদেশ যাচাই করে দেখেছে, পোস্টটি বিভ্রান্তিকর। প্রথমত পোস্টে দাবির সাথে ব্যবহৃত ছবিটি ভিন্ন ঘটনার। রিভার্স সার্চিং টুল ব্যবহার করে দেখা গেছে, ইরাকে ২০০৮ সালের ২৭ জুন বাগদাদ আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উত্তর পাশে এক মাঠে বিমানটিকে জরুরি অবতরণ করানো হয়। পরে বিকল হওয়া বিমানটিকে পরিবহণের সুবিধার্থে ওই বছরের ৭ জুলাই সাথের বিমান ঘাঁটিতে বিস্ফোরক দিয়ে বিমানের পাখা আলাদা করা হয়, আলোচ্য ছবিটি সে সময়ে তোলা। দেখুন ক্যাপশনসহ এলামি ফটোস্টকে ছবিটি--


উল্লেখ্য, সেখানে বিমানটির নাম উল্লেখ করা হয়, সি-১৩০ হারকিউলিস। এলামি ডটকমে প্রকাশিত এই ছবিটি সম্পর্কে আরো জানতে ক্লিক করুন এখানে

পরবর্তীতে আরো খোঁজ করে এই ছবিটিসহ একই ঘটনার বিস্তারিত বর্ণনা এবং আরো কিছু ছবি পাওয়া যায় যুক্তরাষ্ট্রের বিমানবাহিনীর অফিশিয়াল ওয়েবসাইটে। 'Coalition, Iraqi team recover damaged C-130' শিরোনামে একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে U.S. AIR FORCES CENTRAL নামের সেই ওয়েবসাইটে। দেখুন--


পরবর্তীতে AiirSource Military নামের একটি ভেরিফায়েড ইউটিউব চ্যানেলেও সেই বিমানটিকে বোমা দিয়ে আলাদা করে ফেলার একটি ভিডিও প্রকাশ করা হয় ২০১৩ সালে। দেখুন--

এছাড়া, সম্প্রতি সি-১৩০ নামে কোনো সামরিক বিমান আফগানিস্তানের ফারাহ প্রদেশে বিধ্বস্ত হওয়ার কোন খবর মূলধারার গণমাধ্যমে পাওয়া যায়নি।

অর্থাৎ ২০০৮ সালে ইরাকের একটি ভিন্ন ঘটনার ছবিকে সম্প্রতি আফগানিস্তানে মার্কিন সামরিক বিমান বিধ্বস্ত হওয়ার বলে প্রচার করা হচ্ছে; যা বিভ্রান্তিকর।

Claim Review :   ফারাহ প্রদেশে একটি মার্কিন #C130 সামরিক বিমান আজ সন্ধ্যায় বিধ্বস্ত হয়েছে
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  Misleading
Show Full Article
Next Story