ভিডিওটি সম্প্রতি ফ্রান্সে মুসলমানদের উপর পুলিশি নির্যাতনের নয়

২০১৭ সালের একটি ভিডিওকে সাম্প্রতিক হামলার ভিডিও বলে প্রচার করা হচ্ছে।

সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে একটি ভিডিও ছড়িয়েছে যেখানে নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের দ্বারা কিছু সাধারণ মানুষের মধ্যে সাড়াশিভাবে ধরপাকড় চালাতে দেখা যায়। ভিডিওটিতে একজনের হাতে ফ্রান্সের পতাকা ছিল। ফেসবুকে বিভিন্ন পেজ থেকে ভিডিওটি শেয়ার দিয়ে এটিকে অতি সম্প্রতি ফ্রান্সে মুহাম্মদ (স) কে নিয়ে কার্টুন আঁকার জের ধরে মুসলমানদের উপর সরকারীভাবে হামলার দৃশ্য বলে দাবী করা হচ্ছে।

আর্কাইভ দেখুন এখানে

ফ্যাক্ট চেক:

বুমের অনুসন্ধানে দেখা গেছে ভিডিওটি সাম্প্রতিক সময়ের ফ্রান্সের নয়। বরং ২০১৭ সালের ২২ মার্চের একটি ভিডিও যেখানে দেখা যায়, পুলিশ সদস্যরা কিছু বিক্ষোভকারীকে হটিয়ে দেয়ার চেষ্টা করছে। ইউটিউবে প্রাপ্ত ২২ মার্চ, ২০১৭ তে আপলোড হওয়া এরকম একটি ভিডিওতে ফরাসী সাবটাইটেল যুক্ত করা আছে যার বাংলা হচ্ছে, ''প্যারিসের ক্লিশি মসজিদ বন্ধ করেছে সিআরএস।'' উল্লেখ্য, সিআরএস তথা রিপাবলিকান সিক্যুরিটি কোম্পানীজ হলো ফ্রান্সের পুলিশের দাঙ্গা পুলিশ বিভাগ। দেখুন এখানে

উক্ত ভিডিওটির একটি বিস্তারিত বিবরণ পাওয়া যায় একই তারিখে প্রকাশিত ফরাসী পত্রিকা ল্য পয়েন্টের একটি খবরে। সেখানে বলা হয় স্থানীয় মেয়রের আদেশে সেই মসজিদটিকে খালি করতে অভিযানটি চালায় স্থানীয় পুলিশ। পরবর্তীতে এটি নিয়ে বেশ আন্দোলন হয় ফ্রান্সে। দেখুন এখানে


সুতরাং, এটা নিশ্চিত যে ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি সাম্প্রতিক ফ্রান্সের নয়।

Claim Review :   ফ্রান্সে মুহাম্মদ (স) কে নিয়ে কার্টুন আঁকার জের ধরে মুসলমানদের উপর সরকারীভাবে হামলার দৃশ্য
Claimed By :  Facebook Post
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story