এটি পুরোনো ভিডিও, চলমান লকডাউনের নয়

পুরোনো একটি ভিডিওকে 'লকডাউনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় মারামারির' ভিডিও বলে প্রচার করা হচ্ছে সামাজিক মাধ্যমে।

গতকাল ১৯ এপ্রিল থেকে সামাজিক মাধ্যমে একটি ভিডিও নিচের ক্যাপশনসহ ব্যাপকভাবে ছড়িয়েছে--

"পিকআপে হর্ণ দেওয়ায় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানুষ ক্ষিপ্ত হয়ে ড্রাইভার এবং হেল্পারকে পুকুরে ফেলে মার-ধর করে।"

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে, একটি রাস্তার ধারে কিছু নারী-পুরুষ মিলে একজন ব্যক্তিকে মারধর করছেন।

বেশ কিছু ফেসবুক আইডি ও পেইজ থেকে ভিডিওটি পোস্ট করা হয়েছে। এর মধ্যে 'পজিটিভ' নামে একটি পেইজ থেকে ১১ লাখ বারের বেশি এটি 'ভিউ' হয়েছে। শেয়ার করেছেন ১৭ হাজারের বেশি মানুষ।

১৯ এপ্রিল রাতে আপলোড করা ভিডিওটির ক্যাপশনে উল্লেখ নেই যে, এটি কবেকার ঘটনা। ফলে ফেসবুক ব্যবহারকারীরা এটিকে চলমান লকডাউনের ঘটনা বলে মনে করে নানান মন্তব্য করছেন। এসব মন্তব্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া এবং ওই এলাকার মানুষ নিয়ে নেতিবাচক এবং কিছু ক্ষেত্রে ঘৃণাবাচক মনোভাব প্রকাশ করা হচ্ছে।



ফ্যাক্ট চেক:

রিভার্স ইমেজ সার্চে ইন্টারনেটে ভিডিওটির অস্তিত্ব বিভিন্ন জায়গায় পাওয়া গেছে। এর মধ্যে সবচেয়ে পুরোনো ভার্সনটি পাওয়া গেছে একটি ইউটিউব চ্যানেলে। ২০১৯ সালের ৭ জুন এটি আপলোড করা হয় (অর্থাৎ করোনা মহামারির শুরু আগের ঘটনা এটি)। এরপরেও বিভিন্ন সময়ে ভিডিওটি বিভিন্ন চ্যানেলে আপলোড করা হয়েছে।


তবে এটি কোন এলাকার ঘটনা এবং কেন তা ঘটেছে সে বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।


Claim Review :  লকডাউনে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মানুষ ক্ষিপ্ত হয়ে ড্রাইভার এবং হেল্পারকে পুকুরে ফেলে মার-ধর করে
Claimed By :  Facebook posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story