খালেদা জিয়ার বক্তব্যের এই ক্লিপটি এডিট করা

বুম বাংলাদেশ দেখেছে, ২০১৫ সালে লন্ডনে দেয়া খালেদা জিয়ার বক্তব্যের একাধিক অংশকে কেঁটে যুক্ত করে ভিডিওটি বানানো হয়েছে।

সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে সাবেক প্রধানমন্ত্রী বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার একটি ক্লিপ বেশ কিছু প্রোফাইল এবং গ্রুপ থেকে পোস্ট করা হচ্ছে। দেখুন এমন কিছু ভিডিও এর লিংক এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে

গত ২১ সেপ্টেম্বরে 'বাংলাদেশ ছাত্রলীগ' নামের ফেসবুক গ্রুপে একটি ভিডিও পোস্ট করা হয়েছে। ১৯ সেকেন্ডের সেই ভিডিওতে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়াকে কিছু কথা বলতে শোনা যায়। সেখানে তাকে বলতে শোনা যায়, "আপনারা যতই বলেন আন্দোলন; আন্দোলন ঢাকায় সেভাবে করা সম্ভব হয়নি। এখানে আবার পরিবারের মধ্যে গণ্ডগোল আছে। তারেক রহমানকে তো আপনারা ভাল করেই চিনেন। বউ এর সাথে গণ্ডগোল, বউ চায় ক্ষমতা, সেও চায় ক্ষমতা"। ক্লিপটিকে ঘরোয়া মিটিং এর বলে দবাই করা হলেও কখন কবে ধারণ করা সেই বিষয়ে কিছুই উল্লেখ করা হয়নি। দেখুন সেই পোস্টের স্ক্রিনশট--


এরকম আরো একটি পোস্টের স্ক্রিনশট দেখুন--


ভিডিওটি ২০১৯ সালেও একাধিক ফেসবুক পেজ এবং প্রোফাইল থেকে পোস্ট করা হয়েছে। দেখুন এমন একটি পোস্টের স্ক্রিনশট--


ফ্যাক্ট চেক:

বুম বাংলাদেশ যাচাই করে দেখেছে, বেগম খালেদা জিয়ার বক্তব্যের এই ভিডিও ক্লিপটি এডিট করা। মূলত খালেদা জিয়ার পুরোনো একটি বক্তব্যের দুটি ভিন্ন অংশকে একসাথে এডিট করে যুক্ত করে মাঝখানে নতুন শব্দ জুড়ে এটি তৈরি করা হয়েছে। ক্লিপটির হুবহু ভিডিওটি পাওয়া না গেলেও একই বক্তব্যের একাধিক পূণাঙ্গ ভিডিও খুঁজে বের করতে সক্ষম হয়েছে বুম বাংলাদেশ। ২০১৫ সালের ৪ নভেম্বর 'Tarique Rahman' নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে খালেদা জিয়ার একটি বক্তব্য পোস্ট করা হয়। এক ঘন্টা ১২ মিনিটের সেই ভিডিওটির শিরোনাম ছিল, 'Begum Khaleda Zia's Speech | Park Plaza, London | 1 November 2015'। ভিডিওটির ২৫ মিনিট ২০ সেকেন্ড থেকে খালেদা জিয়াকে বলতে শোনা যায়, "....এই এরশাদ প্রথমে অংশগ্রহন করেনাই। রংপুর থেকে কিন্তু এরশাদ উইথড্র করেছে তার সিট। ঢাকা থেকে করতে চেয়েছে, জোর করে তাকে করতে দেয়া হয়নি। তাকে সিএইমএইচ এ..., এরশাদ কিন্তু অংশগ্রহণ করতে চায়নি। এখানে আবার পরিবারের মধ্যে গণ্ডগোল আছে। তাকে তো আপনারা ভাল করে চেনেন। বউ এর সঙ্গেও গণ্ডগোল। বউ ও চায় ক্ষমতা, সেও চায় ক্ষমতা। তখন এরশাদকে যখন পারছেনা, তখন নিয়ে সিএমএইচ এ বন্ধ করেছে। একটা মূলা ঝুলায়ে রাখছে যে নাহলে তোমাকে ঐ মঞ্জুর মার্ডার কেস, অমুক তমুক কতগুলা আছে। তোমাকে জেলে ভরে দিব।" দেখুন আসল বক্তব্যের সেই অংশ্তুকু নিচের ভিডিওটিতে-

অর্থাৎ উপরে উল্লেখিত খালেদা জিয়ার বক্তব্যের অংশটুকু মূলত জাতীয় পার্টির সাবেক চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদ সংক্রান্ত। কিন্তু সামাজিক মাধ্যমে প্রচারিত ক্লিপটিতে এই ভিডিওটির একটি নির্দিষ্ট অংশ (এখানে আবার পরিবারের মধ্যে গণ্ডগোল আছে। তাকে তো আপনারা ভাল করে চেনেন। বউ এর সঙ্গে গণ্ডগোল। বউ ও চায় ক্ষমতা, সেও চায় ক্ষমতা।) সাথে 'তারেক রহমানকে' এডিট করে জুড়ে দেয়া হয়েছে। এতে মনে হচ্ছে ক্লিপটি খালেদা জিয়ার পুত্র বর্তমানে বিএনপি'র ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক জিয়াকে নিয়া করা খালেদা জিয়ার মন্তব্য।

এছাড়া আসল বক্তব্যের ভিডিওটির পরবর্তী অংশে ৪০ মিনিট ৫০ সেকেন্ড থেকে বেগম খালেদা জিয়াকে বলতে শোনা যায়, "এবং সেভাবেই নির্দেশও দেয়া হয়েছে, এখন আমাদেরকে কমিটিগুলো পূনর্গঠন করতে হবে। আপনারা যতই বলেন যে, আন্দোলন; আন্দোলন ঢাকায় সেভাবে করা সম্ভব হয়নি। কিন্তু গ্রামদেশে যে কি আন্দোলন হয়েছে! স্বাধীনতার সময়ে, মুক্তিযুদ্ধে এরকম আন্দোলন হয়নি"। কিন্তু এই অংশটুকুকে কেটে আলোচ্য ক্লিপটির শুরুতে প্রেক্ষাপটহীনভাবে যুক্ত করা হয়েছে। দেখুন আসল বক্তব্যের সেই অংশটুকু এখান থেকে-

খালেদা জিয়ার লন্ডনের পার্ক প্লাজায় দেয়া একই বক্তব্যের আরেকটি ভিডিও পাওয়া গেছে 'BNP Only' নামের আরেকটি ইউটিউব চ্যানেলে। ১ ঘন্টা ৪২ মিনিটের সেই ভিডিওটি পোস্ট করা হয় ২০১৫ সালের ২ নভেম্বর। এই ভিডিওটির ৫৫ মিনিট এবং ১ ঘন্টা ১০ মিনিট ৪০ সেকেন্ড থেকে সেই দুটি অংশ শোনা যাবে যে দুটিকে আগে-পরে যুক্ত করে এডিট করে প্রচার করা হচ্ছে। দেখুন এই ভিডিওটি--

২০১৫ সালের সেই অনুষ্ঠান সংক্রান্ত প্রতিবেদন দেখুন বিডিনিউজ২৪ ডটকম এ।

এছাড়া বাংলাদেশের মূলধারার খবরের তথ্যমতে, ২০১৮ সালে এই ভিডিওটি সামাজিক মাধ্যমে প্রচারিত হলে এটিকে 'অপপ্রচার' বলে দাবি করেন বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবীর রিজভী আহমেদ। তিনি বলেন, বিভিন্ন সময়ে তিনি নেতাকর্মীদের মধ্যে যে বক্তব্য দিয়েছেন তা কাটিং পেস্ট করে বোঝানোর চেষ্টা হয়েছে যে পরিবারের মধ্যে সমস্যা হয়েছে। দেখুন--


দেখুন প্রতিবেদনটি এখানে। এছাড়া সেসময়ে এ সংক্রান্ত আরেকটি প্রতিবেদন প্রকাশ করে পূর্ব পশ্চিম বিডি নামক একটি অনলাইন। দেখুন--


পড়ুন এখানে

অর্থাৎ বেগম খালেদা জিয়ার ২০১৫ সালের লন্ডনে দেয়া বক্তব্যের কিছু অংশ আগে-পরে জুড়ে দিয়ে মাঝে কিছু শব্দ যুক্ত করে একাধিক সময়ে প্রচার করা হচ্ছে যা বিভ্রান্তিকর।

Updated On: 2021-11-30T15:56:23+05:30
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.