স্পিডবোট দুর্ঘটনার পুরোনো ভিডিও বিভ্রান্তিকর দাবিতে ভাইরাল

বুম বাংলাদেশ দেখেছে, গত মে মাসে মাদারীপুরের একটি স্পিডবোট দুর্ঘটনার ভিডিওকে সাম্প্রতিক বলে প্রচার করা হচ্ছে।

সামাজিক মাধ্যমে সম্প্রতি একটি ভিডিও পোস্ট করে দাবি করা হচ্ছে, কিছুক্ষণ আগে মাওয়া ঘাট থেকে ছেড়ে আসা একটি স্পিডবোট শিবচরের কাঁঠালবাড়ি ঘাটে দুর্ঘটনার শিকার হলে এতে ২৭ জন যাত্রী মারা গেছেন। ভিডিওটিতে নদীর পাড়ে সাদা কাপড় জড়িয়ে সারিবদ্ধ ভাবে রাখা লাশের দৃশ্যও দেখতে পাওয়া যায়। এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে এবং এখানে

গত ১ সেপ্টেম্বর 'Hridoy Khan' নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে ভিডিওটি পোস্ট করে বলা হয় "ইন্নালিল্লাহ,, কিছুক্ষণ আগে মাওয়া ঘাট থেকে ছেড়ে আসা স্পিড বোর্ড শিবচরের কাঁঠালবাড়ি তে বলগেটের সাথে দুর্ঘটনায় ২৭ জনের লাশ উদ্ধার, জীবিত চারজন, উদ্ধারের বাকি আরো তিনজন।............"। এখানে স্পষ্টভাবে ঘটনাটি 'কিছুক্ষণ আগের' বলে উল্লেখ করা হয়েছে। অর্থাৎ পোস্ট দেখে মনে হচ্ছে ঘটনাটি ১ সেপ্টেম্বরের।

পোস্টটি দেখুন এখানে

ফ্যাক্ট চেক:

ভিডিওটির কি-ফ্রেম নিয়ে সার্চ করার পর, 'Mehendiganj Times' নামের একটি ফেসবুক পেজে একই ভিডিওটি চলতি বছরের ৩ মে পোস্ট করতে দেখা গেছে। ভিডিওটির বর্ণনায় লেখা হয়েছে "মাওয়া ঘাট থেকে ছেড়ে আসা স্পিড বোর্ড শিবচরের কাঁঠালবাড়ি তে বলগেটের সাথে দুর্ঘটনায় ২৭ জনের লাশ উদ্ধার, জীবিত চারজন, উদ্ধারের বাকি আরো তিনজন। রয়েছে মেহেন্দিগঞ্জের ও ১জন।" পোস্টটি দেখুন এখানে। 'Mehendiganj Times' ফেসবুক পেজে থেকে পোস্ট করা ভিডিওটির সাথে আলোচ্য ভাইরাল ভিডিওটির হুবহু মিল রয়েছে।

চলতি মে মাসে ফেসবুকে পোস্ট করা ভিডিও ( বামে) এবং সম্প্রতি ভাইরাল পোস্টের ( ডানে) পাশাপাশি স্ক্রিনশট দেখুন

অর্থাৎ ভিডিওটি চলতি বছর মে মাসে ফেরিঘাট সংলগ্ন কাঁঠালবাড়ি ঘাট এলাকায় ঘটা এক স্পিডবোট দুর্ঘটনার, সাম্প্রতিক কোনো ঘটনা নয়।

পাশাপাশি ইউটিউবে সার্চ করার পর 'দৈনিক আজকের ফুলপুর' নামের একটি ইউটিউব চ্যানেলে ৪ মে ২০২১ সালে আপলোড করা হুবহু একই ভিডিও একই রকম বর্ণনায় পোস্ট করতে দেখা গেছে। দেখুন--

ঘটনা সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে কি-ওয়ার্ড দিয়ে সার্চ করার পর, দেশের বিভিন্ন গণমাধ্যমে চলতি বছর মে মাসে উক্ত দুর্ঘটনা সম্পর্কিত খবর খুঁজে পাওয়া গেছে। তন্মধ্যে দৈনিক প্রথম আলোর অনলাইন ভার্সনে ৩ মে ২০২১ সালে "পদ্মায় দুই নৌযানের সংঘর্ষে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ২৬" শিরোনামে প্রকাশিত খবরে লেখা হয়েছে--

"মাদারীপুরের শিবচর উপজেলায় বাংলাবাজার ফেরিঘাটে বালুবাহী বাল্কহেডের সঙ্গে স্পিডবোটের সংঘর্ষে মৃত মানুষের সংখ্যা বেড়ে ২৬ হয়েছে। এ ঘটনায় নিখোঁজ আছেন বেশ কয়েকজন। আজ সোমবার সকাল সাতটার দিকে বাংলাবাজার ফেরিঘাটের পুরোনো কাঁঠালবাড়ি ঘাটে এ দুর্ঘটনা ঘটে।"

প্রথম আলোতে প্রকাশিত খবরটিতে বাংলাবাজার ফেরিঘাটের ট্রাফিক পুলিশের পরিদর্শক আশিকুর রহমানের বরাত দিয়ে আরো জানানো হয়- " মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়া থেকে ৩০ জন যাত্রী নিয়ে একটি স্পিডবোট বাংলাবাজার ফেরিঘাটের দিকে যাচ্ছিল। স্পিডবোটটি বাংলাবাজার ফেরিঘাটের পুরোনো কাঁঠালবাড়ি ঘাটের কাছাকাছি আসার পর বালুবোঝাই বাল্কহেডের সঙ্গে সংঘর্ষ হয়। এতে স্পিডবোটটি উল্টে যায়।"

খবরটি দেখুন এখানে

বিবিসি বাংলায় প্রকাশিত এই ঘটনা সম্পর্কিত আরেকটি খবর দেখুন এখানে

অর্থাৎ ভিডিওটি গত ৩ মে কাঁঠালবাড়ি ঘাট এলাকায় ঘটা এক স্পিডবোট দুর্ঘটনার। যাকে বিভ্রান্তিকরভাবে 'কিছুক্ষণ আগের' বা সাম্প্রতিক বলে দাবি করা হচ্ছে। তবে এই ঘটনায় মৃতের সর্বশেষ সংখ্যা পৃথকভাবে যাচাই করেনি বুম বাংলাদেশ।

অতএব দাবিটি বিভ্রান্তিকর।

Claim Review :   মাওয়া ঘাট থেকে ছেড়ে আসা স্পিড বোর্ড শিবচরের কাঁঠালবাড়ি তে বলগেটের সাথে দুর্ঘটনায় ২৭ জনের লাশ উদ্ধার
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  Misleading
Show Full Article
Next Story