ব্যাঙ্গাত্মক লেখাকে বিভ্রান্তিকর শিরোনামে প্রকাশ

২০২০ সালের 'কাল্পনিক' একটি লেখাকে 'খবর' হিসেবে প্রকাশ করেছে একাধিক অনলাইন পোর্টাল।

সম্প্রতি ফেসবুকে একটি খবর একাধিক অনলাইন পোর্টালে দেখা যাচ্ছে যেখানে দাবি করা হচ্ছে, বন্ধুকে শালা বলায় বন্ধুর বোনের সাথে জোর করে বিয়ে দেয়া হয়েছে। দেখুন এমন কিছু পোস্ট এখানে, এখানে এবং এখানে

গত ৩ মার্চ 'ভাইরাল বাংলাদেশ' নামের গ্রুপে একটি খবর পোস্ট করা হয় যার শিরোনাম ছিল, ব'ন্ধুকে শালা বলায় ব'ন্ধুর বোনের সাথে জো'র করে বিয়ে। দেখুন পোস্টটির একটি স্ক্রিনশট এখানে--


খবরটি পড়ুন এই লিঙ্কে। এছারা এরকম খবর আরো দেখুন এখানে এবং এখানে

ফ্যাক্ট চেক:

বুম বাংলাদেশ যাচাই করে দেখেছে, উক্ত খবরের শিরোনামটি বিভ্রান্তিকর।

খবরের শিরোনামে বন্ধুকে 'শালা' বলার দরুণ জোর করে বিয়ে দেয়ার দাবি করা হলেও খবরটির ভেতরে এক জায়গায় লেখা রয়েছে "এই সংবাদের সকল চরিত্রই কাল্পনিক। কারো সাথে মিলে গেলে তারা দায়ী থাকবেনা।"

অর্থাৎ, মূলত এটি একটি ব্যঙ্গাত্মক সংবাদ। কিন্তু শিরোনামে তেমন কোনো ডিসক্লেইমার উল্লেখ নেই। বরং একটি প্রকৃত ঘটনার খবর হিসেবেই শিরোনামে পরিবেশন করা হয়েছে।

চলতি সপ্তাহে খবরটি নতুন করে অনলাইনে ছড়ালেও মূল লেখাটি পাওয়া গেছে 'আওয়ার শরনখোলা' নামের একটি অনলাইন পোর্টালে, যা ২০২০ সালের ২১ জুন প্রকাশিত হয়। সেই লেখাটির শিরোনাম ছিল, "বন্ধুকে শালা বলে গালি দেওয়াতে, জোরপূর্বক বন্ধুর বোন কে বিয়ে করিয়ে দিলো বন্ধুমহল!!!" প্রতিবেদনের লেখকের নাম দেয়া আছে, "মিষ্টার শরণখোলা"। ওই লেখার নিচে ডিসক্লেইমার দেয়া ছিলো, "সকল চরিত্রই কাল্পনিক কারো সাথে মিলে গেলে মিষ্টর শরণখোলা দায়ী থাকবেনা।"

দেখুন সেই লেখাটির একটি স্ক্রিনশট--

লেখাটি দেখুন এই লিঙ্কে

অর্থাৎ ২০২০ সালে প্রকাশিত একটি ব্যাঙ্গাত্মক লেখাকে নতুন করে সত্যিকার খবরের মতো করে শিরোনামে প্রকাশ করা বিভ্রান্তিকর।

Claim Review :   বন্ধুকে শালা বলায় বন্ধুর বোনের সাথে জোর করে বিয়ে
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  Misleading
Show Full Article
Next Story