২ বছর আগের খবরকে নতুন করে প্রকাশে বিভ্রান্তি

২০১৮ সালে পাপুয়া নিউ গিনিতে এক মাসের জন্য ফেসবুক বন্ধ করার খবরটি নতুন করে বিভ্রান্তিকরভাবে প্রচার করা হচ্ছে।

''যে দেশে বন্ধ হতে যাচ্ছে ফেসবুক!'' এরকম শিরোনামের খবর একটি অনলাইন পোর্টাল এবং ফেসবুকে প্রচারিত হচ্ছে। ভুয়া ব্যবহারকারী ও পর্নোগ্রাফি রুখতে দেশটির সরকার এই পদক্ষেপ নিয়েছে বলে খবরটিতে বলা হয়েছে। আর্কাইভ দেখুন এখানে

চলতি সেপ্টেম্বর মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে এই ধরনের প্রতিবেদন বাংলাদেশি কিছু পোর্টালে প্রকাশিত হয়েছে। তাতে জানানো হয়েছে, পাপুয়া নিউগিনির সরকার এমন সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

নিচের স্ক্রিনশটটি দেখুন--


চলতি বছরে এর আগেও বাংলাদেশি বিভিন্ন ফেসবুক পেইজে পাপুয়া নিউগিনিতে ফেসবুক বন্ধের খবরটি পোস্ট করা হয়েছে। নিচের স্ক্রিনশটে দেখুন--

আর্কাইভ দেখুন এখানে
ফ্যাক্ট চেক:

পাপুয়া নিউগিনিতে ফেসবুক বন্ধের সরকারি উদ্যোগের খবরটি দুই বছরের পুরোনো। বর্তমানে এমন কোনো উদ্যোগের খবর দেশটির সংবাদমাধ্যম বা আন্তর্জাতিক কোনো সংবাদমাধ্যমে পাওয়া যায়নি। ২০১৮ সালের মে মাসে পাপুয়া নিউ গিনি সরকার ফেসবুকে ভুয়া অ্যাকাউন্টধারী ও পর্নোগ্রাফি ঠেকাতে তথা সাইবার নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে এক মাসের জন্য ফেসবুক বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নেয়। ওই সময় বিবিসির খবরে বলা হয়--

''Papua New Guinea will ban Facebook for a month while it identifies fake profiles and considers the website's effect on the country.
Communication minister Sam Basil said users posting pornography and false information would be identified.
He also suggested the country could set up its own rival social network.''
গার্ডিয়ানের খবরের স্ক্রীনশট
এ সংক্রান্ত গার্ডিয়ানের প্রতিবেদন দেখুন এখানে

কিছু ক্ষেত্রে ২০১৮ সালে বাংলায় প্রকাশিত প্রতিবেদন নতুন করে কিছু ফেসবুক পেইজে পোস্ট করার কারণেও বিভ্রান্তি তৈরি হয়েছে।

সূতরাং দুই বছরের পুরনো খবরকে নতুন করে ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা স্পষ্টতই বিভ্রান্তিমূলক।

Updated On: 2020-10-14T15:16:43+05:30
Claim Review :   পাপুয়া নিউগিনিতে বন্ধ হতে যাচ্ছে ফেসবুক
Claimed By :  Website, Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story