ভারতে ৭ হাজার পরিবারের ইসলাম গ্রহণের খবর সত্য নয়

২০১৭ সালে উত্তর প্রদেশে শিক্ষকদের এক বিক্ষোভ সমাবেশে দেয়া বক্তব্যকে সূত্র হিসেবে নিয়ে এই দাবিটি করা হচ্ছে।

'এবার ইসলাম গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিলেন সাত হাজার হিন্দু পরিবার' শিরোনামে একটি পোস্ট সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে ছড়িয়েছে। Somoy BD নামক একটি ফেসবুক পেজ থেকে পোস্ট করা ভিডিওতে এক ব্যক্তিকে সাংবাদিকদের সামনে হিন্দিতে কথা বলতে দেখা যায়। তার এই বক্তব্যকে কেন্দ্র করেই Somoy BD পেজ থেকে পোস্ট করা ভিডিওর বর্ণনাকারী এটিকে ৭ হাজার হিন্দু পরিবারের ইসলাম গ্রহণের ঘোষণা বলে দাবি করছেন। দেখুন এখানে


আর্কাইভ করা আছে এখানে

ফ্যাক্ট চেক:
বুম বাংলাদেশের অনুসন্ধানে দেখা যায়, Somoy BD পেজের ভিডিওতে সংযুক্ত হিন্দিতে কথা বলার ক্লিপটি এর আগে ভারতেও ভাইরাল হয়েছিল। ইউটিউবে ২০১৭ সালের ৩০ জুলাইয়ের এ সংক্রান্ত একটি ভিডিও পাওয়া যায়।
মূলত: ২০১৭ সালে ভারতের উত্তর প্রদেশে শিক্ষা মিত্র হিসেবে কর্মরত চুক্তিবদ্ধ শিক্ষকদের চাকরি সংক্রান্ত সুপ্রিম কোর্টের এক রায়ের প্রতিবাদে শিক্ষা মিত্রদের প্রতিবাদ সমাবেশে এক শিক্ষক এই বক্তব্য দেন। বক্তব্যে তিনি ন্যায়বিচার না পেলে ইসলাম গ্রহণের হুমকি দিয়ে বলেন- ''এখন আমরা ইসলাম গ্রহণ করবো, আমাদের পরিবার, সকল শিক্ষা মিত্রদের পরিবার শীঘ্রই ইসলাম গ্রহণ করবো। আমরা বেশ ভালোই চাকরি করছিলাম, ১০ বছর এমনিতেই কাটিয়েছি, অত:পর চাকরি স্থায়ী হলো, পরবর্তীতে হাইকোর্ট তা বাতিল করে দিলেন, পরে গেলাম সুপ্রিম কোর্টে, শুনলাম ওখানে ন্যায়বিচার পাওয়া যায়, কিন্তু ওখানেও আমাদের সাথে অন্যায় করা হয়েছে।''

উল্লেখ্য, ২০১৫ সালে ভারতের উত্তর প্রদেশের সরকার প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষা মিত্র হিসেবে চুক্তিভিত্তিক নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের চাকরি সহকারী শিক্ষক হিসেবে স্থায়ীকরণ করে। একইবছর সেপ্টেম্বরে হাইকোর্ট এই শিক্ষকরা শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় পাশ করেননি এই কারণ দেখিয়ে তাদের চাকরি স্থায়ীকরণের সিদ্ধান্ত বাতিল করে দেয় এবং যোগ্যতা যাচাই পরীক্ষায় পাশ করার জন্য দুই বছর সময় বেঁধে দেয়। পরবর্তীতে সুপ্রিম কোর্ট প্রাথমিকভাবে হাইকোর্টের রায়ে স্থিতাবস্থা জারি করলেও পরে হাইকোর্টের রায়ই বহাল রাখে।

ইন্ডিয়া টুডের প্রতিবেদন দেখুন এখানে

সুপ্রিমকোর্টের এই রায়ের প্রতিবাদে শিক্ষা মিত্ররা সরকারের কাছে তাদের চাকরি রক্ষার দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ করেন। এসময় সাংবাদিকদের সামনে এক শিক্ষক উক্ত বক্তব্যটি দেন যদিও পরবর্তীতে তারা আর ইসলাম গ্রহন করেছেন বলে কোন খবর ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমে পাওয়া যায় না।

তাছাড়া ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমেও ওই শিক্ষকের বক্তব্যকে উত্তর প্রদেশ সরকারের বিরুদ্ধে হুমকি বলে অভিহিত করেছে।

এর আগে ভারতে ২০১৯ সালে ঝাড়খন্ডে মব লিঞ্চিংয়ের শিকার হয়ে নিহত তাবরেজ আনসারীর পক্ষে বিচার দাবীতে এই ৭ হাজার পরিবারের ইসলাম গ্রহণের বক্তব্য দেয়া হয় বলে দাবি করে ছড়ানো হয়। বুম ইন্ডিয়ার প্রতিবেদন দেখুন এখানে

Claim Review :   এবার ইসলাম গ্রহণ করার সিদ্ধান্ত নিলেন সাত হাজার হিন্দু পরিবার
Claimed By :  Facebook posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story