গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের জুতা চুরি ও থানায় যাওয়ার ঘটনাটি কাল্পনিক

বুম বাংলাদেশ দেখেছে, একাধিক গণমাধ্যমের সুত্র অনুযায়ী 'মিম' থেকে নেয়া স্যাটায়ার এটি, কোনো সত্য খবর নয়।

সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে একটি খবর বেশ কিছু মূলধারার সংবাদমাধ্যমে পাওয়া যাচ্ছে যেখানে বলা হচ্ছে, অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেটার গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের বিয়েতে জুতা চুরি হওয়ায় থানায় গিয়েছিলেন তিনি। দেখুন এ সংক্রান্ত কিছু খবরের লিংক এখানে, এখানে, এখানে এবং এখানে।

গত ২৯ মার্চ দৈনিক কালের কন্ঠ অনলাইনে একটি খবর প্রকাশিত হয়েছে যার শিরোনাম ছিল, 'বিয়ের রাতে 'জুতা চুরি'; থানায় গেলেন ম্যাক্সওয়েল!'। খবরটির বিস্তারিত অংশে বলা হয়, ভারতীয় বংশোদ্ভূত চিকিৎসক বিনি রামনকে বিয়ে করছেন অস্ট্রেলিয়ার তারকা অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। বলা হয় সেই বিয়েতে কেউ একজন তার জুতা লুকিয়ে ফেলেছে। সেই জুতা না পেয়ে থানায় অভিযোগ করেন ম্যাক্সওয়েল। পরে ভুল বুঝতে পেরে সেই অভিযোগ প্রত্যাহার করেন তিনি। দেখুন স্ক্রিনশট--


এরকম আরো একটি খবর দেখা যায় দৈনিক সমকাল অনলাইনে। ২৯ মার্চ 'বিয়ের রাতে জুতা চুরি, মামলা করলেন ম্যাক্সওয়েল!' শিরোনামে একই খবর প্রকাশ করে দৈনিকটি। দেখুন এখানে--


ফ্যাক্ট চেক:

বুম বাংলাদেশ যাচাই করে দেখেছে, ম্যাক্সওয়েলের জুতা চুরির পর মামলার খবরটি মূলত স্যাটায়ার। প্রথমত, কালের কন্ঠ পত্রিকার খবরটিতে কোনো সুত্র উল্লেখ নেই। কোন গণমাধ্যমের বরাতে তারা এই খবরটি করেছে তা জানা যায়নি। তবে সমকাল পত্রিকার খবরটিতে বলা হয়, খবরটি অস্ট্রেলিয়ার গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। তবে ঠিক কোন গণমাধ্যমের বরাতে সমকাল পত্রিকা খবরটি করেছে তার আবার উল্লেখ সেখানে নেই। পরে আরো খোঁজ করে একাত্তর টিভিতেও একই খবর পাওয়া যায় সেখানে একটি খবরের স্ক্রিনশট উল্লেখ করে বলা হয়, একটি অস্ট্রেলীয় গণমাধ্যমে খবরটি প্রকাশিত হয়েছে। অর্থাৎ তারাও কোনো নির্দিষ্ট সুত্রের উল্লেখ করতে পারেনি। দেখুন একাত্তর টিভির সেই স্ক্রিনশটটি--


পরে খোঁজ করে একাত্তর টিভিতে ব্যবহৃত খবরটির হদিস পাওয়া যায়। এটি মূলত 'the12thman.in' নামক একটি ভারতীয় অনলাইন যেখানে ম্যাক্সয়েল সংক্রান্ত খবরটি গত ২৪ মার্চ প্রকাশিত হয়েছিল। দেখুন--


তবে সেই খবরটির শেষাংশেই বলা হয়েছে, এটি মূলত একটি মিম থেকে নেয়া যেটি পরে অস্ট্রেলিয়ার একটি গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছিল। অতএব এটি কোনো সত্য ঘটনার বর্ণনা নয় তা এই খবরে বুঝা যাচ্ছে। দেখুন--


খবরটি পড়ুন এখানে।

পরবর্তীতে এই একই শিরোনামের একটি স্ক্রিনশট জি নিউজের একটি খবরে পাওয়া যায়। জি নিউজের খবরটি প্রকাশিত হয়েছিল গত ২৪ মার্চ। সেখানে বলা হয়, ম্যাক্সওয়েলের বিয়েতে জুতা চুরির ঘটনাটি নিছক কাল্পনিক। খবরটির ইংরেজি অনুবাদে লাইনটি ছিল, Meanwhile, this is not a fact but a funny meme that has gone viral on social media. People have also made a lot of comments on this. The meme was reported on an Australian website. অর্থাৎ বলা হয়, এটি মূলত একটি হাস্যরসাত্মক মিম, কোনো সত্য খবর নয়। এই মিমটি প্রথম অস্ট্রেলীয় ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হয়েছিল। দেখুন খবরটি--


পড়ুন এখানে। এছাড়া সেখানে ছবির উপরে ডিসক্লেইমার দিয়ে দেয়া হয়েছে। দেখুন--


আওয়ার্স টিভি নামক একটি অনলাইনেও এটিকে নিছক হাস্যরসাত্মক মিম হিসেবে উল্লেখ করেছে। দেখুন স্ক্রিনশট–


খবরটি দেখুন এখানে।

মূলত সামাজিক মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া একটি মিম যাচাই না করে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদের বক্তব্য ছাড়া খবর হিসাবে প্রকাশ করেছে গণমাধ্যমগুলো। দেখুন গত ২৪ তারিখ টুইটারে ভাইরাল হওয়া এমন একটি টুইট এখানে--

অর্থাৎ গ্লেন ম্যাক্সওয়েলের বিয়েতে জুতা চুরির পর থানায় যাওয়ার খবরটি একটি 'স্যাটায়ার', কোনো সত্য খবর নয়।

সুতরাং অস্ট্রেলীয় ক্রিকেটার গ্লেন ম্যাক্সয়েলের বিয়ে সংক্রান্ত হাস্যরসাত্মক মিমকে সত্য খবর হিসাবে দাবি করা হচ্ছে, যা বিভ্রান্তিকর।

Claim :   বিয়ের রাতে জুতা চুরি; থানায় গেলেন ম্যাক্সওয়েল!
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.