যুক্তরাষ্ট্রের ঘটনায় ছবির ব্যবহারে বিভ্রান্তি

যুক্তরাষ্ট্রের এক স্কুল শিক্ষিকার ছাত্রের সাথে শারীরিক সম্পর্কের ঘটনার খবরের সাথে ভুল ছবি সংযুক্ত করে প্রকাশ করা হচ্ছে।

''ছাত্রের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক,কঠিণ বিপাকে শিক্ষিকা'' এরকম শিরোনামে একটি খবর বিভিন্ন অনলাইন পোর্টালের পাশাপাশি সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করা হচ্ছে যেখানে মূল খবরে যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিনে একটি স্কুলের শিক্ষিকাকে তার অর্ধেক বয়সী ছাত্রের সাথে শারীরিক সম্পর্কের দায়ে ক্ষমা চাইতে হয়েছে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। খবরের সাথে শার্ট পরিহিত এক পুরুষ ও শাড়ি পরিহিত এক নারীর ছবি সংযুক্ত করা আছে যা দেখে ঘটনাটি বাংলাদেশের কিংবা ভারতীয় উপমহাদেশের মনে হতে পারে।

আর্কাইভ দেখুন এখানে
আজকের সংবাদ নামক একটি পোর্টাল অনুযায়ী,
''ছাত্রের সঙ্গে শারীরিক সম্পর্কে জড়ানোর দায়ে একজন শিক্ষিকার কারাদণ্ড হয়েছে। ছাত্রের সঙ্গে এ ধরনের কর্মকাণ্ডে জড়ানোর ফলে যুক্তরাষ্ট্রের উইসকনসিন প্রদেশের ওই শিক্ষিকাকে ক্ষমা চাইতে হয়েছে। খবর দ্য সান-এর।

জানা গেছে, ছাত্রের বয়স ১৬ বছর এবং শিক্ষিকার বয়স ৩২ বছর। শিক্ষিকা কার্টনি রোজনস্কি'কে ছয়মাসের কারাদণ্ড এবং তিন বছর এমন জায়গায় কাজ করার নির্দেশ দিয়েছে আদালত, যেখানে ১৮ বছরের নীচে কোনো শিক্ষার্থী থাকবে না।
রায় শোনানোর সময় বিচারক অভিযুক্ত শিক্ষিকার উদ্দেশে বলেন, আপনি শিক্ষার্থীদের বাবা-মার কাছে দুঃস্বপ্নের মতো। কারণ, শিক্ষক শিক্ষিকাদের কাছে ছেলে মেয়েরা সুরক্ষিত রয়েছেন বলেই বিশ্বাস করেন বাবা-মায়েরা। কিন্তু আপনি সেই বিশ্বাস ভঙ্গ করেছেন।''
আর্কাইভ দেখুন এখানে
ফ্যাক্ট চেক:
অনুসন্ধানে দেখা যায়, হুবহু এরকম খবর দৈনিক ইনকিলাব সহ আরো কয়েকটি সংবাদ মাধ্যমেও এসেছে। দেখুন এখানেএখানে

প্রতিবেদনগুলোতে অভিযুক্ত শিক্ষিকার ছবিকেই খবরের সাথে ব্যবহার করা হয়েছে। এ সংক্রান্ত যুক্তরাষ্ট্রের দ্যা সান এর প্রতিবেদন দেখুন এখানে

কিন্তু আজকের সংবাদসহ কিছু পোর্টাল ছবির মূল ছবি ব্যবহার না করে ভিন্ন ছবি ব্যবহার করছে যার ফলে বিভ্রান্তি তৈরীর অবকাশ আছে।

Claim Review :   সংবাদ প্রতিবেদনে ব্যবহৃত নারী পুরুষের ছবি যুক্তরাষ্ট্রে একটি ঘটনার
Claimed By :  Website, Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story