বিভ্রান্তিকর শিরোনামে অভিনেতা আলমগীরের মৃত্যুর খবর ফেসবুকে

বুম বাংলাদেশ দেখেছে, মূলধারার একাধিক গণমাধ্যমে প্রকাশিত সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী অভিনেতা আলমগীর সুস্থ আছেন।

সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকে একাধিক অনলাইন পোর্টালের লিংক শেয়ার করে বরেণ্য অভিনয়শিল্পী আলমগীরের মৃত্যুর একটি খবর বিভিন্ন ফেসবুক পেজ ও আইডি থেকে শেয়ার করা হচ্ছে। খবরটির সাথে অভিনেতা আলমগীর ও তার স্ত্রীর ছবিও যুক্ত করা হয়েছে। এমন কিছু পোস্টের লিংক এখানে, এখানে এবং এখানে

গত ৩০ জুলাই 'Nijum Akthar' নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে অনলাইন পোর্টালের একটি লিংক শেয়ার করে লেখা হয়,"কিংবদন্তি অভিনেতা আলমগীর আর নেই তিনি না ফেরার দেশে চলে গেছেন"।

পোস্টটি দেখুন এখানে

হুবহু একই শিরোনামে প্রকাশিত অনলাইন পোর্টালের ওই খবরটির ডেটলাইনে প্রকাশের সময় লেখা আছে '1 days ago'। ডেটলাইনে খবরটির সুনির্দিষ্ট তারিখ উল্লেখ না থাকায় ধারণা করা কঠিন " '1 days ago' বলতে কোন তারিখ বা দিনকে বোঝানো হয়েছে। তবে স্বাভাবিকভাবে খবরটির ডেটলাইন এবং ফেসবুক পোস্টের দিনক্ষণ দেখে মনে হচ্ছে এটি চলতি জুলাই মাসের ঘটনা।

খবরটি দেখুন এখানে

ফ্যাক্ট চেক:

বুম বাংলাদেশ যাচাই করে দেখেছে, বরেণ্য অভিনয়শিল্পী আলমগীরের মারা যাওয়ার খবরটি ভিত্তিহীন।

খবরটির শিরোনামে অভিনেতা আলমগীরের মৃত্যু সংবাদ জানানো হলেও মূল খবরে এ রকম কোন তথ্য নেই। বরং খবরটির ভিতরে তাকে নিয়ে বিভ্রান্তিকরভাবে মৃত্যুর গুজব ছড়ানো হয়েছিলো বলে উল্লেখ করা আছে।পাশাপাশি, খবরটিতে তার শারীরিক অবস্থার উন্নতির কথাও জানানো হয়।

গুগল সার্চের মাধ্যমে দেখা গেছে, অনলাইন পোর্টালের খবরটিও কপি করা। মূলত, গত ২৬ এপ্রিল 'নায়ক আলমগীরের মৃত্যুর গুজব, ক্ষুব্ধ পরিজনেরা' শিরোনামে দৈনিক প্রথম আলো অনলাইন ভার্সনে প্রকাশিত এক প্রতিবেদনের কিছু শব্দ পরিবর্তন করে হুবহু কপি করে, কপিরাইট এড়াতে বাক্য ও শব্দের মাঝে অযাচিত যতি চিহ্ন দিয়ে বিভ্রান্তিকর শিরোনামে অনলাইন পোর্টালগুলোতে প্রকাশ করা হচ্ছে। প্রথম আলো -এর মূল প্রতিবেদনটি দেখুন এখানে

প্রথম আলো অনলাইন -এর প্রতিবেদন ( বামে) এবং ভাইরাল অনলাইন পোর্টালের ( ডানে) পাশাপাশি স্ক্রিনশট দেখুন

প্রসঙ্গত, গত এপ্রিল মাসে করোনায় আক্রান্ত হয় বেশ কিছুদিন হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন এই অভিনেতা।

পাশাপাশি, বুম বাংলাদেশ এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত মূলধারার কোন গণমাধ্যমে অভিনেতা আলমগীরের মৃত্যু সংক্রান্ত কোন খবর খুঁজে পায়নি। বরং অনলাইন ভিত্তিক সংবাদমাধ্যম জাগোনিউজ২৪-এ গত ২৭ জুন "বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের নতুন সভাপতি নায়ক আলমগীর" শিরোনামে তাকে নিয়ে প্রকাশিত খবরে বলা হয়-

"দেশের নন্দিত অভিনেতা আলমগীর। চলচ্চিত্রের এই কিংবদন্তিকে এখন আর আগের মতো অভিনয়ে দেখা যায় না। নিজের ব্যবসা ও সংসার নিয়ে ব্যস্ত তিনি। সম্প্রতি করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। সেরে উঠেছেন সুচিকিৎসায়। এই অভিনেতা এবার দায়িত্ব নিয়েছেন বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের কেন্দ্রীয় কমিটির। তিনি সংগঠনটির সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন।"

খবরটি দেখুন এখানে

অর্থাৎ, অভিনেতা আলমগীরে মৃত্যু খবরটি ভিত্তিহীন। শিরোনামে মৃত্যুর কথা উল্লেখ থাকলেও মূল খবরে এ ঠিক উল্টো তথ্য দেয়া হয়েছে।

সুতরাং, চটকদার শিরোনাম দিয়ে বিস্তারিত অংশে ভিন্ন তথ্য উল্লেখ করে, অন্য একটি গনমাধ্যমের খবর হুবহু কপি করে একাধিক অনলাইন পোর্টালে প্রকাশ করা হচ্ছে, যা বিভ্রান্তিকর।

Claim Review :   কিংবদন্তি অভিনেতা আলমগীর আর নেই
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story