আল জাজিরার তথ্যচিত্র সরিয়ে নেয়া সংক্রান্ত আদালতের 'ভুয়া আদেশ' প্রচার

আল জাজিরার বাংলাদেশ সংক্রান্ত একটি ডকুমেন্টারি সব অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে সরানোর নির্দেশ সম্বলিত নোটিশটি ভুয়া

সামাজিক মাধ্যমে একটি খবর একাধিক অনলাইন পোর্টালের মাধ্যমে ছড়াচ্ছে যেখানে বলা হচ্ছে, আল জাজিরার প্রতিবেদনটি সরানোর নির্দেশ দিয়েছে আদালত। দেখুন এমন কিছু খবরের লিংক এখানে, এখানে এবং এখানে

Amardesh - দৈনিক আমারদেশ নামের পেইজ থেকে jagoronnews.com নামক অনলাইন পোর্টালের একটি খবর পোস্ট করা হয় যার ক্যাপশন ছিল, 'ব্রেকিংঃ আল জাজিরার প্রতিবেদনটি সব অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে সরানোর নির্দেশ হাইকোর্টের'

খবরটিতে দাবি করা হয়, বাংলাদেশে সম্প্রতি আলোচিত হওয়া আল জাজিরার তথ্যচিত্রটি ফেসবুক-টুইটারএবং ইউটিউবসহ সকল সামাজিক মাধ্যম থেকে সরিয়ে দেয়ার নির্দেশ দিয়েছে আদালত। দেখুন পোস্টটির স্ক্রিনশট--

পোস্টটির আর্কাইভ দেখুন এখানে

এ ব্যাপারে আরেকটি বিস্তারিত খবর দেখা যাচ্ছে, বাংলা টিভি অনলাইনের একটি প্রতিবেদনে। দেখুন প্রতিবেদনটির স্ক্রিনশট--

খবরটির আর্কাইভ ভার্সন এই লিঙ্কে

ফ্যাক্টচেক:

বুম বাংলাদেশ যাচাই করে দেখেছে, আল জাজিরার তথ্যচিত্রটি সরিয়ে নেয়ার আদালতের নির্দেশটি সত্য নয়।

প্রকৃতপক্ষে আল জাজিরায় সম্প্রচারিত তথ্যচিত্র 'অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার্স মেন' প্রচারে নিষেধাজ্ঞা চেয়ে গত ৮ ফেব্রুয়ারি রিট করেন সুপ্রিমকোর্টের আইনজীবী এনামুল কবীর ইমন। প্রথম আলো পত্রিকার একটি প্রতিবেদনে আরো জানা যায়, বাংলাদেশে আল জাজিরার সম্প্রচার বন্ধের পক্ষেও কথা বলেছেন রিটকারী আইনজীবী।

পরবর্তীতে উক্ত রিটের প্রেক্ষিতে আদালত থেকে ৬ জন আইনজীবির মতামত জানতে চেয়েছে। এ সংক্রান্ত একটি খবরে রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল নওরোজ মোহাম্মদ রাসেল চৌধুরী বিবিসি বাংলাকে বলেন, "আদালত পাঁচটি বিষয়ে অ্যামিকাস কিউরিদের মতামত চেয়েছে, যা নিয়ে ১৫ই ফেব্রুয়ারি শুনানি হবে।"

বিবিসির প্রতিবেদনটি পড়ুন এখানে

একই খবরে উক্ত ৬ জন আইনজীবীর(অ্যামিকাস কিউরি) তালিকা প্রকাশ করা হয়েছে যাদের মতামত শুনবে আদালত। তারা হলেন, এজে মোহাম্মদ আলী, আব্দুল মতিন খসরু, শাহদীন মালিক, ফিদা এম কামাল, প্রবীর নিয়োগী এবং কামাল উল আলম।

মূলত গত ১০ জানুয়ারি ডিবিসি চ্যানেলের 'আল জাজিরার প্রতিবেদনটি সব অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে সরানোর নির্দেশ' শিরোনামে একটি খবর প্রকাশিত হয়। পরবর্তীতে একাধিক অনলাইন পোর্টাল উক্ত খবরটি হুবহু প্রকাশ করলেও ডিবিসি তাদের খবরটি সরিয়ে নেয়। দেখুন সেই খবরটির আর্কাইভ ভার্সন এখানে-

খবরটির আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে

অর্থাৎ, সেই রিটের প্রেক্ষিতে এখনো আল জাজিরার আলোচ্য তথ্যচিত্রের বিষয়ে মতামত চাওয়া এবং শুনানির আগামি তারিখ ব্যতীত আদালত কোনো সিদ্ধান্ত কিংবা পর্যবেক্ষণ দেয়নি। বিস্তারিত পড়ুন ডয়েচে ভেলের আরেকটি প্রতিবেদন এ

সুতরাং আল জাজিরার 'অল দ্য প্রাইম মিনিস্টার্স মেন' তথ্যচিত্রটি সরিয়ে দিতে আদালতের নির্দেশ সংক্রান্ত খবরটি ভুল ও বিভ্রান্তিকর।

Claim Review :   আল জাজিরার প্রতিবেদনটি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম থেকে সরানোর নির্দেশ
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story