নোয়াখালীতে ধর্ষণচেষ্টায় অভিযুক্তদের 'ক্রসফায়ারে দেয়া'র ভুয়া খবর

ফেসবুকে ভাইরাল হওয়া এক ভিডিওতে এই ভুয়া খবরটি ছড়ানো হয়েছে।

M.R Media মিডিয়া নামে একটি ফেসবুক পেইজে সোমবার দিবাগত রাত সাড়ে তিনটার দিকে (৬ অক্টোবর ২০২০) একটি ভিডিও আপলোড করা হয়েছে যার শিরোনাম, "নোয়াখালীর ধর্ষণ কারীদের ক্রসফায়ার দিল জনগণের সামনে সরাসরি দেখুন।"

ভিডিওর স্ক্রিনেও বারবার দেখানো হয়েছে 'ক্রসফায়ার' কথাটি। ভিডিওটির আর্কাইভ লিংক দেখুন এখানে

আপলোড করার পর মঙ্গলবার সকাল পর্যন্ত ভিডিওটি সাড়ে ৫ লাখ বারের বেশি ভিউ হয়েছে। রিয়েকশন জানিয়েছেন বিশ হাজারের বেশি মানুষ।


এছাড়াও আরও কিছু ফেসবুক পেইজেও একই ভিডিও আপলোড করা হয়েছে। দেখুন এখানে

ভিডিওর শুরুতেই একটি কণ্ঠে বলতে শোনা যায়, "মানুষ মিছিল করছে এলাকায়। সে ধর্ষণকারীকে এইমাত্র ক্রস দিয়েছে আমাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। র্যাব অত্যন্ত সুন্দর কাজ করেছে। সবাই খুশি। সবাই খুশি।"

এরপর স্ক্রিনে হাজির হন উপস্থাপক। তিনি নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে গৃহবধুকে ধর্ষণচেষ্টা ও বিবস্ত্র করে ভিডিও ধারণের সাথে জড়িত গ্রেফতারকৃত দেলোয়ার এর নাম উল্লেখ করে তার ক্রসফায়ার কামনা করেন। বলেন, 'দেলোয়ারকে এভাবে ক্রসফায়ার দিতে হবে।'

কিন্তু কিছুক্ষণ পর আবার তিনি জানান, ক্রসফায়ারের ভিডিও ভাইরাল হয়েছে। এবং সেই ভিডিও তিনি তার দর্শকদের দেখাবেন। ৭ মিনিট ৩ সেকেন্ডের ভিডিওর ১ মিনিট ৩৬ সেকেন্ডের পর থেকে উপস্থাপক বলেন, "এই ক্রসফায়ারের ভিডিওটা দর্শক দেখা মাত্রই আপনারা ফেসবুকে এবং ইউটিউব থেকে দর্শক শেয়ার করে ছড়িয়ে দেন সারা বাংলাদেশে।"

অর্থাৎ, ভিডিওটির শিরোনাম, শুরুর কয়েক সেকেন্ডে দেয়া তথ্য এবং উপস্থাপক কর্তৃক বারবার 'ক্রসফায়ারের ভিডিও দেখানো হবে'- এ ধরনের বক্তব্য থেকে যে কারো মনে হতে পারে নোয়াখালীর বেগমগঞ্জে ধর্ষণচেষ্টা ও বিবস্ত্র ভিডিও ধারণে জড়িতদের কেউ একজন 'ক্রসফায়ারে' নিহত হয়েছে।

কিন্তু প্রকৃতপক্ষে এমন কোনো ঘটনা ঘটেনি। এই মামলার কোনো আসামি ক্রসফায়ারে নিহত হয়েছেন এমন কোনো খবর মঙ্গলবার সকাল ১১টা পর্যন্ত শীর্ষ স্থানীয় সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত হয়নি।

মঙ্গলবার সকালে প্রথম আলোর প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, "এ ঘটনায় ঢাকা ও নোয়াখালীতে এ পর্যন্ত মামলার এজাহারভুক্ত চারজনসহ মোট ছয়জন আসামিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।"

Updated On: 2020-10-08T14:07:41+05:30
Claim Review :   নোয়াখালীতে ধর্ষণে অভিযুক্তদের ক্রসফায়ারে দেয়া হয়েছে
Claimed By :  Facebook Post
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story