সিনেমার ক্লিপকে 'সত্য জলপরীর ভিডিও' বলে প্রচার

কিছু সিনেমার আংশিক ক্লিপ যুক্ত করে ভুয়া ভিডিও প্রচার করা হচ্ছে ফেসবুকে।

ফেসবুকে একটি ভিডিওতে দাবি করা হয়েছে, ক্যামেরায় জলপরী রেকর্ড করা হয়েছে। লিংক দেখুন এখানে

'অমীমাংসিত রহস্য' নামের একটি ফেসবুক পেইজ থেকে একটি ভিডিও শেয়ার করে শিরোনামে লেখা হয়েছে "ক্যামেরায় রেকর্ড হওয়া সত্যিকারের জলপরীর ৮টি ভিডিও, দেখুন এই মৎস্যকন্যাদের!"।

পোস্টটির আর্কাইভ ভার্সন দেখুন এখানে

অর্থাৎ দাবী করা হচ্ছে ভিডিওতে ব্যবহৃত ক্লিপগুলো সত্যিকারের 'জলপরীর' বা 'মৎস্যকন্যাদের' ভিডিও।

ফ্যাক্ট চেক:

ভিডিওটির ফ্রেম আলাদা করে রিভার্স ইমেজ সার্চ করে দেখা গেছে এতে বিভিন্ন মুভি ও ডকুমেন্টারি, আবার কোথাও প্রাঙ্ক ভিডিওর ক্লিপ ব্যবহার করে সেগুলোকে ''সত্যিকারে জলপরী'' বলে বিভ্রান্তিকরভাবে তুলে ধরা হয়েছে।

ভিডিওটির শুরুতে একটি মৎস-কণ্যার আংশিক ক্লিপ দেখা যায় যা মূলত 'দ্য মারমেইড' সিনেমার অংশ। দেখুন--


এছাড়া উক্ত ভিডিওটির ১২ সেকেন্ড থেকে আরেকটি অংশ দেখা যায় যা ২০১১ সালে মুক্তিপ্রাপ্ত হলিউড সিনেমা 'Pirates of the Caribbean: On Stranger Tides' এর একটি ক্লিপ থেকে নেয়া।


ভিডিওর ১ মিনিটের পর থেকে নারী কণ্ঠের দ্বারাভাষ্যকার বলতে থাকেন--

"এই ভিডিওটিকে একটি ড্রোন দ্বারা শুট করা হয়েছিলো।... এই ভিডিওর সাথে জড়িত অনেক তথ্য এখনও অজানা। কেউ জানে না এই ভিডিওটি কে এবং কোথায় শুট করা হয়েছিলো। কিন্তু রেকর্ডকারী দাবি করেন, তার ড্রোন একটি পুরো জলপরীর দলকে ক্যাপচার করেছিলো। ভিডিওটি কোনো রকম এডিট করা হয়নি। ভিডিওটি ফেইক নয়। অনেকে বলেন এগুলো ডলফিনও হতে পারে। কিন্তু জুম করলে এদের সামনে মানুষের মতো হাত এবং পেছনে মাছের মতো লেজ দেখা যায়।"

নারী কণ্ঠের দ্বারাভাষ্যের সময় একটি ফুটেজ স্ক্রিনে দেখানো হয় যার একটি স্ক্রিনশট নিচে দেয়া হলো--


বুম বাংলাদেশ-এর অনুসন্ধানে দেখা যাচ্ছে, এই বর্ণনাটি ভুয়া ও বিভ্রান্তিকর তথ্যে ভরা। "অজানা ড্রোনে শুট করা" কথিত জলপরী বলে দাবি করা ফুটেজটিতে প্রকৃতপক্ষে দেখা যাচ্ছে, সমুদ্রে এক ঝাঁক ডলফিনের জলকেলি।

ডলফিনদের এই খেলার ভিডিওটি ড্রোন দিয়ে রেকর্ড করেছেন ক্যাপ্টেন ড্যাব এন্ডারসন নামের একজন সমুদ্র অভিযাত্রী। তার তোলা মূল ভিডিওটি দেখুন এই ইউটিউব চ্যানেলে। সমুদ্রে এন্ডারসনের দুঃসাহসী অভিযান ও তার তোলা ডলফিনের ভিডিও নিয়ে বিজনেস ইনসাইডারের ২০১৪ সালের প্রতিবেদন দেখুন এই লিংকে। ভিডিওটি শুট করা হয় যুক্তরাষ্ট্রের ক্যালিফর্নিয়া উপকূলে।

মূল ভিডিওর স্ক্রিনশট দেখুন নিচে--


'অমীমাংসিত রহস্য' নামক পেইজটির ভিডিওর ২ মিনিট ১০ সেকেন্ডের পরে 'জলপরীর ভিডিও' দাবি করে যে ক্লিপটি দেখানো হয়েছে সেটি একটি প্রাঙ্ক ভিডিওর অংশ।

এরকম আরও গুজব এবং অপ্রমাণিত নানান দাবি সম্বলিত ভিডিও ক্লিপ জুড়ে দিয়ে সেগুলোকে কথিত 'সত্যিকারের জলপরী' বলে দেখানো হয়েছে ভিডিওটিতে।

Updated On: 2020-11-09T03:46:13+05:30
Claim Review :   ক্যামেরায় ধরা পড়ল মৎসকন্যা
Claimed By :  Facebook Posts
Fact Check :  False
Show Full Article
Next Story