৫০ টাকার স্মারক রৌপ্য মুদ্রার ছবি দিয়ে বিভ্রান্তিকর দাবি ফেসবুকে

বুম বাংলাদেশ দেখেছে, প্রচলিত মুদ্রা নয় বরং এটি ‘স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী’ উপলক্ষে বাংলাদেশ ব্যাংকের স্মারক মুদ্রার ছবি।

সামাজিক মাধ্যম ফেসবুকের একাধিক আইডি ও পেজ থেকে ৫০ টাকা মূল্যমানের কয়েনের দুই পিঠের ছবি পোস্ট করে দাবি করা হচ্ছে, বাংলাদেশে ৫০ টাকার কয়েনের যাত্রা শুরু হয়েছে। অর্থাৎ, ৫০ টাকার কয়েন এখন লেনদেনের জন্য ব্যবহৃত হবে। এমন কিছু পোস্ট দেখুন এখানে, এখানে এবং এখানে

গত ২ ফেব্রুয়ারি 'Amra Rajbarir Sontan' নামের একটি ফেসবুক পেজ থেকে গ্রাফিক ছবিটি পোস্ট করে লেখা হয়, "💰বাংলাদেশে ৫০ টাকার কয়েনের যাত্রা শুরু। অভিনন্দন 💚"।পোস্টের স্ক্রিনশট দেখুন--

পোস্টটি দেখুন এখানে

ফ্যাক্ট চেক:

বুম বাংলাদেশ যাচাই করে দেখেছে, পোস্টের বর্ণনায় করা দাবিটি বিভ্রান্তিকর। ৫০ টাকার কয়েনটি প্রচলিত কোন মুদ্রা নয় বরং এটি বাংলাদেশের 'স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী' উদযাপন উপলক্ষে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক মুদ্রিত একটি স্মারক মুদ্রা।

প্রসঙ্গত, জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি প্রাপ্ত কোন ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান, স্থান ও ঘটনাসমূহকে স্মরণীয় করে রাখার জন্য কোন দেশের কেন্দ্রীয় ব্যাংক থেকে এ ধরনের প্রতীকী মুদ্রা বা নোট ছাপা হয়, যা 'স্মারক মুদ্রা' নামে পরিচিত।

কি-ওয়ার্ড সার্চ ধরে সার্চ করার পর মূলধারার গণমাধ্যম বাংলা ট্রিবিউনে " স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে ৫০ টাকার স্মারক নোট ও রৌপ্য মুদ্রা" শিরোনামে এ সংক্রান্ত একটি খবর খুঁজে পাওয়া যায়, যা ২০২১ সালের ২৩ মার্চ প্রকাশিত হয়েছে। খবরে বলা হয়েছে, "বাংলাদেশের 'স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী' উদযাপন উপলক্ষে ৫০ টাকা মূল্যমানের প্রচলনযোগ্য স্মারক ব্যাংক নোট, ৫০ টাকা মূল্যমানের স্মারক নোট ও ৫০ টাকা মূল্যমানের রৌপ্য স্মারক মুদ্রা মুদ্রণ করেছে বাংলাদেশ ব্যাংক। মঙ্গলবার (২৩ মার্চ) বাংলাদেশ ব্যাংকের এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। আগামী ২৮ মার্চ থেকে এসব স্মারক নোট ও রৌপ্য মুদ্রা বাংলাদেশ ব্যাংকের মতিঝিল অফিস কাউন্টারে পাওয়া যাবে। পরবর্তীতে অন্যান্য শাখা অফিস থেকেও এসব নোট ও মুদ্রা নিতে পারবেন গ্রাহকরা।" স্ক্রিনশট দেখুন--

খবরটি দেখুন এখানে

খবরটি একই তারিখে, "স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে আসছে তিন নকশার নতুন মুদ্রা" শিরোনামে দৈনিক প্রথম আলোর অনলাইন সংস্করণেও খবর প্রকাশিত হতে দেখা গেছে। প্রথম আলো'র খবরে মুদ্রার ছবি দিয়ে লেখা হয়, "৫০ টাকা মূল্যমান রৌপ্য স্মারক মুদ্রার ওজন ৩০ গ্রাম। স্মারক মুদ্রাটির সম্মুখভাগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি (৭ মার্চের ভাষণ), প্রতিকৃতির নিচে মূল্যমান কথায় ও অংকে 'পঞ্চাশ ৫০ টাকা' এবং প্রতিকৃতির ওপরে অর্ধবৃত্তাকারভাবে 'স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী ১৯৭১-২০২১' লেখা রয়েছে।" স্ক্রিনশট দেখুন--

খবরটি দেখুন এখানে

অর্থাৎ প্রথম আলোর খবর অনুযায়ী ওজন ৩০ গ্রাম ওজনের ৫০ টাকার রৌপ্য স্মারক মুদ্রার জন্য ৪,০০০ টাকা গুনতে হবে সংগ্রহকারীকে।

বিস্তারিত সার্চ করার পর, বাংলাদেশ ব্যাংকের অফিসিয়াল ওয়েবসাইটের আর্কাইভ-এ ২০২১ সালের ২৩ মার্চে প্রকাশিত স্মারক মুদ্রা প্রচলনে সংক্রান্ত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতেও খুঁজে পাওয়া যায়। স্ক্রিনশট দেখুন--

প্রেস বিজ্ঞপ্তি দেখুন এখানে

উল্লেখ্য স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে ৫০ টাকার নতুন স্মারক স্বর্ণমুদ্রা মুদ্রণের খবরও প্রকাশিত হয়েছে সংবাদ মাধ্যমে।

সুতরাং বাংলাদেশের স্বাধীনতার সুবর্ণ জয়ন্তী উদযাপন উপলক্ষে মুদ্রিত ৫০ টাকার স্মারক রৌপ্য মুদ্রাকে 'স্মারক মুদ্রা' শব্দটি বাদ দিয়ে প্রচলিত মুদ্রা দাবি করে প্রচার করা হচ্ছে সামাজিক মাধ্যমে; যা বিভ্রান্তিকর।

Claim :   বাংলাদেশে ৫০ টাকার কয়েনের যাত্রা শুরু। অভিনন্দন 💚
Claimed By :  Facebook post
Fact Check :  Misleading
Show Full Article
Next Story
Our website is made possible by displaying online advertisements to our visitors.
Please consider supporting us by disabling your ad blocker. Please reload after ad blocker is disabled.